অন্যান্য

ভারতের খেলোয়াড়রা টয়লেট পরিষ্কারের হাত থেকে রেহাই পাচ্ছে

প্রাথমিকভাবে কোয়ারেন্টাইনের কড়াকড়ির কারণে বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফির শেষ ম্যাচটি খেলতে ব্রিসবেনে যেতে রাজিই ছিল না ভারতীয় ক্রিকেট দল। পরে শর্তসাপেক্ষে সেখানে গিয়েছে তারা, রাজি হয়েছে গ্যাবায় চতুর্থ টেস্টটি খেলতে। কিন্তু ব্রিসবেনে গিয়ে তিক্ত অভিজ্ঞতাই পেতে হয়েছে ভারতের ক্রিকেটারদের।

করোনাভাইরাসের বিধিনিষেধ কড়াকড়িভাবে মানার জন্য হোটেল রুমে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে ভারতের ক্রিকেটারদের। কিন্তু সেখানে দেয়া হয়নি কোনো রুম সার্ভিস। ফলে খাবার-দাবার থেকে শুরু করে টয়লেট পর্যন্ত নিজেদেরই পরিষ্কার করতে হয়েছে রোহিত শর্মা, অজিঙ্কা রাহানেদের।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভারতীয় এক ক্রিকেটারের এমন অভিযোগ বা ক্ষোভপ্রকাশের পর রীতিমতো সারা পড়ে গেছে ক্রিকেট বিশ্বে। নড়েচড়ে বসেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। যার ফলে একদিনের ব্যবধানেই সমাধান পেয়ে গেছেন ভারতের খেলোয়াড়রা, তাদেরকে দেয়া হয়েছে রুম সার্ভিসের ব্যবস্থা।

যার ফলে ব্রিসবেনের বাকি সময় আর নিজেদের কাজ নিজেদের করতে হবে না তাদের। ভারতের শীর্ষস্থানীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়াকে এমনটাই জানিয়েছেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) এক কর্মকর্তা। তার বিবৃতি মোতাবেক, সরাসরি বিসিসিআই প্রধান সৌরভ গাঙ্গুলির মধ্যস্থতায় মিলেছে সমঝোতা।

সেই কর্মকর্তা টাইমস অব ইন্ডিয়াকে বলেছেন, ‘আমাদের বোর্ডকে বলা হয়েছে, খেলোয়াড়দের ব্যবহারের জন্য লিফট খুলে দেয়া হয়েছে। তারা জিমও ব্যবহার করতে পারবে। পাশাপাশি এটিও নিশ্চিত করা হয়েছে যে, সবার জন্য রুম সার্ভিস ও হাউজকিপিংও দেয়া হয়েছে। দলের জন্য একটি আলাদা রুম দেয়া হয়েছে, যেখানে তারা আলোচনার জন্য বসতে পারবে। তবে সুইমিং পুলটা শুধুমাত্র বন্ধ রাখা হয়েছে।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘খেলোয়াড়রা অনেক বেশি ক্লান্ত পরিশ্রান্ত। তাই আপাতত নিজেদের রুমেই অবস্থান করছে। তবে বিকাল বা সন্ধ্যার দিকে তো তাদের হাঁটাচলার প্রয়োজন পড়তেই পারেন। আপনি এত বড় একটা সফরে কোনো খেলোয়াড়কে পুরোপুরি বন্দী রাখার কথা ভাবতেও পারেন না। বিসিসিআই সবসময় খেলোয়াড়দের পাশে আছে। যেন তারা সেরা সুবিধাই পায়।’

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button