অন্যান্য

হিন্দু পরিবারকে সাহায্যের হাত বাড়ালেন কাশ্মীরের মুসলিম প্রতিবেশীরা

তুষারপাতে সাদা হয়ে গেছে ভারতের কাশ্মীর উপত্যকা। তাপমাত্রার পারদ ক্রমেই কমছে। বরফের রাস্তায় হাঁটতে গেলে পা ঢুকে যাচ্ছে, এক কোমর বরফ ডিঙিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে স্থানীয়দের। কুয়াশার চাদরে দেখা যাচ্ছে না চারদিক। এ কঠিন পরিস্থিতিতে স্থানীয় হিন্দু পণ্ডিত পরিবারকে সাহায্যের হাত বাড়ালেন মুসলিম প্রতিবেশীরা। মানবধর্ম সবচেয়ে বড় ধর্ম। তা প্রমাণ করে দিলেন তারা।

ভারতীয় গণমাধ্যম জি নিউজ জানায়, কাশ্মীরের সোপিয়ান জেলার কাশ্মীরি পন্ডিত ভাস্কর নাথ হাসপাতালেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। কিডনি বিকল হয়ে মৃত্যু ওই ব্যক্তির। মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৬০। কিন্তু ভারী তুষারপাতের কারণ রাস্তাঘাট বন্ধ হয়ে যায়। শ্রীনগর থেকে পারগোচি যাওয়ার পথে আটকে যায়। সেই সময় গাড়ির চালক বাড়িতে ফোন করে জানায় , গাড়ি আর চলবে না।

পন্ডিতে শবদেহ যথাস্থানে নিয়ে যেতে মানুষের কাঁধ লাগবে। সেই সময় মুসলিম প্রতিবেশীরাই এগিয়ে আসেন। পণ্ডিতের মৃতদেহ কাঁধে নিয়ে ১০ কিলোমিটার পথ হেঁটে সতকার স্থানে নিয়ে যান মুসলিম প্রতিবেশীরা। এদিকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রতির এই উদাহরণ প্রকাশ্যে আসতে ভারতজুড়ে চলছে প্রশংসা।

Show More

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button