আলু এবং পেঁয়াজ একসাথে রাখলে কী হয়, জেনে নিন বিস্তারিত

আমাদের প্রতিদিনের রান্নার সবচেয়ে পরিচিত উপাদান হলে আলু ও পেঁয়াজ। বিভিন্নরকম রান্নার এগুলো ব্যবহার করা হয়। তাই আলু কিংবা পেঁয়াজ ছাড়া রান্না সম্পূর্ণ করাই মুশকিল বলতে গেলে। আলু দিয়ে চমৎকার স্বাদের সব খাবার তৈরি করা যায়, পেঁয়াজ ব্যবহৃত হয় অনেকটা মশলার মতো। স্বাদ আর সুগন্ধ বাড়াতে পেঁয়াজ যোগ করা হয়। আলু কিংবা পেঁয়াজ, পুষ্টিতে কেউ কারও চেয়ে কম নয়। কিন্তু আজ পুষ্টি নিয়ে কথা হবে না, কথা হবে এমন একটি বিষয়ে যা জানা আপনার জন্য জরুরি।

পেঁয়াজ এবং আলু একসাথে সংরক্ষণ করা উচিত?
আলু এবং পেঁয়াজ সম্পর্কে আমরা জানি না এমন একটি সাধারণ তথ্য হলো, এগুলো একসাথে সংরক্ষণ করা উচিত নয়। বিস্মিত? আসলে এটি আমাদের অনেকের জন্যই বিস্ময়কর। কারণ আমরা বেশিরভাগই একই ঝুড়িতে পেঁয়াজ এবং আলু রাখি। কেন একসাথে রাখা উচিত নয়?
পেঁয়াজ ইথিলিন গ্যাস উৎপাদন এবং নির্গত করে, যা ফল কিংবা সবজিকে দ্রুত পাকতে সাহায্য করে। তাই পেঁয়াজের সঙ্গে আলু রাখলে তা আরও দ্রুত পচতে এবং নষ্ট হতে পারে। এই গ্যাস আলুর অঙ্কুরোদগমকেও দ্রুত করতে পারে। আলুর অংকুর গ্লাইকোয়ালকালয়েডের উচ্চ ঘনত্বের কারণে বিষাক্ত হিসাবে বিবেচিত হয়, যা স্নায়ুতন্ত্রের উপর প্রভাব ফেলতে পারে।
এছাড়াও,পেঁয়াজ এবং আলু উভয়েই আর্দ্রতা ছেড়ে দেয়, যা এগুলোকে দ্রুত শুষ্ক করে তুলতে পারে। শুষ্ক এবং শীতল, ভালোভাবে বাতাস চলাচল করে এমন জায়গায় এগুলো আলাদাভাবে সংরক্ষণ করা ভালো।

কীভাবে সংরক্ষণ করা উচিত?
আলু তাক কিংবা মিটসেফে সংরক্ষণ করতে হবে। এই জায়গাগুলো অন্ধকার, শীতল এবং শুকনো এবং এগুলো আলু সংরক্ষণ করার জন্য উপযুক্ত। এগুলো ঘরের তাপমাত্রার চেয়ে কম তবে রেফ্রিজারেটরের তাপমাত্রার চেয়ে বেশি তাপমাত্রায় সংরক্ষণ করা ভালো। এই জায়গাগুলো গরমে বাড়ির বাকি অংশের চেয়ে শীতল হয় তাই এগুলো সংরক্ষণের জন্য সঠিক জায়গা। অংকুরিত আলুর অংকুরগুলো কেটে ফেলে দিলে এরপর তা খাওয়া নিরাপদ। পেঁয়াজ বায়ুচলাচল করে এমন কোনো উঁচু স্থানে রাখতে হবে। কাগজের ব্যাগ বা তারের ঝুড়িতেও রাখতে পারেন। পেঁয়াজ কিংবা আলু কখনোই ফ্রিজে সংরক্ষণ করা উচিত নয় কারণ ঠান্ডা তাপমাত্রা এগুলো নরম করে দেবে।