আবশেষে শাস্তির মুখে শাহজাদ মাঠে দাঁড়িয়ে ই-সিগারেটে টান জন্য


শুক্রবার ছুটির দিনে বৃষ্টির উপদ্রবে বিঘ্নিত বিপিএলের ঢাকায় হওয়া দুইদিনের দ্বিতীয় পর্বের শেষ দিন। সাকিবের বরিশাল ও নাইমের চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের দুপুরের ম্যাচ হয়নি।

এখন মিনিস্টার ঢাকা ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের ম্যাচও পেন্ডুলামের মত দুলছে। মাঠে চলছে বৃষ্টির লুকোচুরি খেলা। এই যখন অবস্থা, তখন হঠাৎ ড্রেসিংরুমের বাইরে মাঠের ভেতর সিগারেটপান করে লঙ্কা কাণ্ড ঘটিয়ে বসেছেন মিনিস্টার ঢাকার আফগান ওপেনার মোহাম্মদ শাহজাদ। তিনি শেরে বাংলার খোলা মাঠে দাঁড়িয়ে ই-সিগারেট ফুকছেন, সে ছবি এরই মধ্যে ভাইরাল হয়ে গেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

ক্রিকেট মাঠে ধূমপান নিষেধ। কিন্তু আজ শুক্রবার হঠাৎ শেরে বাংলায় প্রকাশ্যে ধূমপান করে কেলেঙ্কারি ঘটালেন আফগান মোহাম্মদ শাহজাদ। বিপিএলের মতো আইসিসি স্বীকৃত আসরে একজন ভিনদেশি ক্রিকেটার খোলা মাঠে দাঁড়িয়ে সিগারেট পান করলেন।

যা সমালোচনার মতোই। চারদিকে বইছে সমালোচনার ঝড়। এ কাজটি কী করে করলেন মোহাম্মদ শাহজাদ? এটা যে চরম দৃষ্টিকটু এবং ক্রিকেট শিষ্টাচার বহির্ভূত? আফগান শাহজাদ কি তা জানতেন না?বিপিএল কর্তৃপক্ষও শাহজাদের এমন অখেলোয়াড়চিত আচরণে বিব্রত। বিপিএল গভর্নিং কমিটি ও বিসিবি বিষয়টাকে কিভাবে দেখছে? বিপিএল গভর্নিং কমিটির সদস্য সচিব ইসমাইল হায়দার মল্লিক জানিয়েছেন প্রথমত খেলার দিন খোলা মাঠে ধূমপান খুবই অশোভন, অনাকাঙ্খিত এবং অখেলোয়াড়চিত। এটি সমালোচনা ও নিন্দা যোগ্য কাজ। আমরা বিস্মিত এবং হতাশ।

তিনি আরও যোগ করেন, ‘একজন ক্রিকেটার খোলা মাঠে ধূমপান করতে পারেন, এটা তো ভাবনারও অতীত। আমরা এটিকে ভালোভাবে দেখছি না। আসলে একজন ক্রিকেটার কোথায় কি করবেন?

তার আচরণ কোথায় কেমন হবে? কোথায় কী করবেন বা করবেন না? তা তো তার নিজেরই খুব ভালো জানা। আমরা মানে বিপিএল কর্তৃপক্ষ বিব্রত।

পাশাপাশি বিসিবি সিইও নিজামউদ্দীন চৌধুরী সুজনের উদ্ধৃতি দিয়ে মল্লিক জানান, বিষয়টি বিসিবিও নোটিশ করেছে। অবশ্যই এ ব্যাপারে একটা সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের হাফভাবে বোঝা যাচ্ছে, একটা শাস্তির মুখে পড়তে যাচ্ছেন শাহজাদ। সেটা কি অর্থদন্ড? না অন্য কিছু? তা- দেখার।