টানা তিন ম্যাচে ম্যান অফ দ্যা ম্যাচ ,ম্যাচসেরা হবার জন্যই যেন সাকিবের জন্ম


আবারও ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন সাকিব আল হাসান। এই ম্যাচে সেরা খেলোয়াড় হবার মধ্য দিয়ে টুর্নামেন্টে টানা তিন ম্যাচে সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হলেন সাকিব।

সিলেটে এদিন মুখোমুখি হয়েছিল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ও ফরচুন বরিশাল। প্রথম ইনিংসে ব্যাটিং করতে নামা বরিশালের ওপেনার ক্রিস গেইল ব্যর্থ হলে মুনিম শাহরিয়ারের সাথে জুটি বাধেন সাকিব। ২৫ বলে ৪৫ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে মুনিম সাজঘরে ফিরে গেলেও ব্যাট হাতে অবিচল ছিলেন সাকিব।

৩৭ বল মোকাবেলায় এদিন ৫০ রানের ইনিংস খেলে দলের স্কোর বড় করতে সাহায্য করেন বরিশালের এই অধিনায়ক। সাকিবের এই ইনিংসে ছিল ৪টি চার ও ২টি ছক্কা। এই রান করতে গিয়ে সাকিবের স্ট্রাইকরেট ছিল ১৩৫.১৪।

ব্যাট হাতে দলের জন্য অবদান রাখার পাশাপাশি বল হাতেও সাকিব ছিলেন দুর্দান্ত। কুমিল্লার ব্যাটিং অর্ডারে এদিন প্রথম আঘাত হানেন সাকিব। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে বল করতে এসে চতুর্থ বলেই তুলে নেন কুমিল্লার ওপেনার ইমরুল কায়েসের উইকেট। ২ বল মোকাবেলায় ১ রান করে সাকিবের বলে তৌহিদ হৃদয়ের হাতে ক্যাচ দেন কায়েস।

দ্বিতীয় উইকেটের দেখা পেতে অবশ্য সাকিবকে অপেক্ষা করতে হয়নি খুব বেশি সময়। এক ওভার বিরতি দিয়ে ইনিংসের চতুর্থ ওভারে বল করতে এসেই থামান কুমিল্লার আরেক ওপেনার লিটন দাসকে।

১৭ বল মোকাবেলায় ১৯ রান করা লিটন দাস যখন ক্রিজে থিতু হয়েছেন তখনই ব্রেকথ্রু এনে দিয়ে দলকে দ্বিতীয় সাফল্য এনে দেন সাকিব। ম্যাচের শুরু দিকে তার এমন বোলিংয়েই মূলত চাপে পড়ে কুমিল্লা।এই ম্যাচে ৪ ওভার বল করে ৫ ইকোনোমিতে ২০ রান খরচায় সাকিব নিয়েছেন ২টি উইকেট।

ব্যাটে-বলে এমন পারফরম্যান্সের পর ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন সাকিব। ম্যাচের সেরা খেলোয়াড় হওয়ার পর তাকে দেয়া হয়েছে ৫০০ মার্কিন ডলার। বাংলাদেশী মুদ্রায় যার পরিমান প্রায় ৪৩ হাজার টাকা।