এবার ফেসবুকে নিজের টাইমলাইনে ‘ক্ষমা’ লিখে ঢাবিছাত্রের ‘আ’ত্মহত্যা’


ফেসবুকে নিজের টাইমলাইনে ‘ক্ষমা’ লিখে না ফেরার দেশে চলে গেলেন প্রীতম কুমার সিংহ। রবিবার (৬ ফেব্রুয়ারি) রাতে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টার পর হাসপাতালে নেওয়ার পথে মৃত্যু হয় তাঁর। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী।

তিনি বলেন, ‘রবিবার দিবাগত রাত ২ টার দিকে নিজ বাড়িতে আত্মহত্যা করেন প্রীতম। কেন আত্মহত্যা করেছে, তা জানাতে পারিনি। তার লাশ ময়নাতদন্তে দেওয়া হয়েছে।’

প্রীতমের বাড়ি টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলায়। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের মৃৎশিল্প বিভাগের ৬৯ ব্যাচের শিক্ষার্থী ছিলেন। প্রীতম টাঙ্গাইলের মধুপুর শহীদ স্মৃতি উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ২০১৬ ব্যাচের ছাত্র ছিলেন। মধুপুর শহীদ স্মৃতি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন প্রীতমের অকাল মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছে।

গণমাধ্যমে পাঠানো এক শোকবার্তায় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন জানায়, মধুপুর শহীদ স্মৃতি উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ২০১৬ ব্যাচের ছাত্র প্রীতম কুমার সিংহ রাতে নিজ বাসায় সবার অগোচরে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। টের পেয়ে মধুপুর উপজেলা হাসপাতালে নেন পরিবারের সদস্যরা। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে মৃত্যু হয় তাঁর। মধুপুর শহীদ স্মৃতি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন প্রীতম সিংহের মৃত্যুতে গভীরভাবে শোকাহত।