পঞ্চগড়ে নব দম্পতি সেলফি তুলতে ব্যস্ত; স্ত্রীকে টেনে ব্রিজের নিচে নিলো বখাটেরা


পঞ্চগড়ে নব দম্পতির উপর হামলা এবং ধর্ষন চেস্টার ঘটনা ঘটেছে। গতকাল রোববার (৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে জেলার আটোয়ারি উপজেলার তোড়েয়া ইউনিয়নের দারখোড় ফকিরপাড়া গ্রামের ব্রীজ সংলগ্ন সুরুজ আলী দম্পতির উপর হামলা হয়। হামলায় আহত হয়ে সুরুজ ও তার স্ত্রী বর্তমানে আটোয়ারি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এই ঘটনার আটোয়ারি থানায় সোমবার (৭ ফেব্রুয়ারি) রাত ৭ টার দিকে সুরুজ আলী বাদী হয়ে দুই যুবকের বিরুদ্ধে এজাহার দাখিল করেন।

এজাহার ও স্বজনদের কাছে জানা যায় সুরুজ আলী তার স্ত্রীকে নিয়ে রবিবার বিকেলে তোড়িয়া ইউনিয়নের দারখোর গ্রামে খালু বদিরুল ইসলামের বাড়িতে যায় । খালুর বাড়িতে খাওয়া দাওয়ার পর ওই গ্রামের একটি ব্রীজে বেড়াতে যায় নব দম্পতি। সেখানে সুরুজ ও তার স্ত্রী কিছুক্ষন সময় কাটায় সেলফিও তুলেন।

এ সময় ওই গ্রামের তছলিম উদ্দিনের ছেলে লুৎফর রহমান (২১) ও জালাল উদ্দিনের ছেলে মো. জুয়েল (২৪) সুরুজ ও তার স্ত্রীকে প্রথমে উত্যাক্ত করেন । সুরুজ ও তার স্ত্রীকে নগ্ন ভাষায় গালি গালাজ করলে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে সুরুজের স্ত্রীকে টেনে হেঁচরে ব্রীজের নিচে নিয়ে ধর্ষনের চেস্টা করেন। এ সময় স্ত্রীকে বাঁচানোর চেস্টা করলে সুরুজকে কিল ঘুষি ও গলা চিপে ধরেন উত্যাক্তকারীরা। তাৎক্ষনিক ওই নব দম্পতির চিৎকারে আশে পাশের লোকজন ছুটে এসে সুরুজ ও তার স্ত্রীকে উদ্ধার আটোয়ারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

তোড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাহমুদ শাহ জানান দারখোর ফকিরপাড়া গ্রামের একটি ব্রীজে এক দম্পতি বেড়াতে যায় পরে ওই গ্রামের দুই যুবক ওই দম্পতির পরিচয় জিজ্ঞাসা করেন কিন্তু সুরুজ নামে ওই ব্যাক্তি তাৎক্ষনিক রাগান্বিতভাবে উত্তর দেয় । এনিয়ে তাদের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটে । তবে তিনি বলেন এটি একটি সামান্য ঘটনা বিষয়টি নিয়ে বাড়াবাড়ি করা হচ্ছে।

আটোয়ারী থানার ওসি এ কে এম মেহেদি হাসান জানান এ বিষয়ে সুরুজ আলী বাদী হয়ে এজাহার দায়ের করেছেন করেছে । পুলিশ তদন্ত করে আসামীদের গ্রেফতারের চেস্টা চালাচ্ছে।