তারা আমাদের শিক্ষা ধ্বংস করে দিচ্ছে,তারা ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান দিতে থাকলে আমি ‘আল্লাহু আকবার’ বলতে শুরু করি। এনডিটিভিকে মুসকান


ভারতের কর্ণাটক রাজ্যে গেরুয়া উত্তরীয় পরিহিত একদল যুবকের সামনে ‘আল্লাহু আকবর’ বলে ভাইরাল হওয়া কলেজছাত্রী মুসকান বলেছেন, ‘আমাদের কাছে শিক্ষার প্রাধান্য সবার আগে। কিন্তু, তারা আমাদের শিক্ষা ধ্বংস করে দিচ্ছে।’ ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেছেন কর্ণাটকে মান্ডি এলাকার একটি কলেজের ছাত্রী মুসকান।

হিজাব পরিহিত তরুণী মুসকান গেরুয়া উত্তরীয় পরা অবস্থায় মিছিল নিয়ে আসা একদল যুবকের ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগানের সামনে অবিচল থেকে সাহসের সঙ্গে কথা বলার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

এনডিটিভিকে মুসকান বলেন, “আমি ভয় পাইনি। কলেজে ঢোকার সময় আমি বোরকা পরা দেখে তারা আমাকে ঢুকতে দিতে চাইছিল না। তারা ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান দিতে থাকলে আমি ‘আল্লাহু আকবার’ বলতে শুরু করি। কলেজের অধ্যক্ষ ও প্রভাষকেরা আমাকে সমর্থন দিয়েছেন এবং আমাকে সুরক্ষা দিয়েছেন।’

দ্বাদশ শ্রেণির বাণিজ্যিক বিভাগের ছাত্রী মুসকান বলেন, ‘আমাদের কাছে শিক্ষার প্রাধান্য সবার আগে। কিন্তু, তারা আমাদের শিক্ষা ধ্বংস করে দিচ্ছে। এটা তো গত সপ্তাহে শুরু হলো। আমরা হিজাব আর বোরকা তো বহুদিন ধরেই পরে আসছি। হিন্দু বন্ধুরাও আমাকে সমর্থন দিয়েছে। আমি নিরাপদ বোধ করছি। সকাল থেকেই অনেকে আমাদের বলেছে, তারা আমাদের সঙ্গে আছে।’

কলেজছাত্রী মুসকান আরও বলেন, ‘হিজাব আমাদেরই একটি অংশ। বহিরাগতরা এটা শুরু করেছে। প্রিন্সিপাল বোরকা না পরার নির্দেশনা দিয়েছিলেন। আমরা হিজাব রক্ষার অধিকারের দাবিতে আন্দোলন চালু রাখব। মুসলিম মেয়ে হিসেবে এটা আমাদের অবিচ্ছেদ্য অংশ।’

এ ছাড়া মুসকান বলেন, ‘ওই মিছিলের মাত্র ১০ শতাংশের মতো শিক্ষার্থী আমাদের কলেজের ছিল। বাকিদের বহিরাগত মনে হচ্ছিল।’