আমি যখন ভয় পাই, আমি তখন আল্লাহর নাম নেই: মুসকান


ভারতের কর্ণাটক রাজ্যে ছাত্রীদের হিজাব পরিধান নিয়ে বিতর্ক বেড়েই চলেছে। এসবের মধ্যেই হিজাব পরিহিতা মুসকান খান নামে এক ছাত্রীর ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। গেরুয়া ওড়না পরা একদল যুবকের বিরুদ্ধে একা দাঁড়িয়ে প্রতিবাদ করতে দেখা গেছে তাকে। মুসকান খানের সঙ্গে কথা বলেছে বিবিসি হিন্দি সার্ভিস।

তিনি বলেন, আমি আল্লাহু আকবর বলেছিলাম কারণ আমি খুব ভয় পেয়েছিলাম। এবং যখন আমি ভয় পাই, আমি আল্লাহর নাম নেই। কর্ণাটকের মান্ডা জেলার একটি প্রি-ইউনিভার্সিটি কলেজের বি.কম দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী মুসকান খান।

সেদিনের ঘটনা সম্পর্কে মুসকান বলেন, আমি আগে থেকে কিছুই জানতাম না। সবসময় যেভাবে কলেজে যাই, সেভাবেই গেলাম। বাইরে থেকে আসা একদল লোক সেখানে বললো যে বোরকা পরে কলেজের ভেতরে যাবে না। কলেজে যেতে হলে বোরকা ও হিজাব খুলে ভেতরে যেতে হবে। তুমি যদি বোরকা পরে থাকতে চাও, তবে বাড়ি ফিরে যাও।

তিনি আরও বলেন, আমি ভেতরে এলাম। ভেবেছিলাম চুপচাপ চলে যাব। কিন্তু সেখানে অনেক শ্লোগান উঠছিল। ‘বোরকা কাদ’, ‘জয় শ্রী রাম’-এর মতো শ্লোগান উঠছিল।

মুসকান বলেন, ‘আমি ভেবেছিলাম আমি ক্লাসে যাব, কিন্তু ছেলেরগুলো আমাকে এমনভাবে অনুসরণ করছিলো যেন তারা সবাই আমাকে আক্রমণের চেষ্টা করছে। তারা ছিল ৪০ জনের মতো। আমি ছিলাম একা। কারো মধ্যে আমি মনুষ্যত্ব আমি লক্ষ্য করিনি। হঠাৎ তারা আমার কাছে এসে চিৎকার করতে লাগল। কারো কারো হাতে ছিল কমলা রঙের স্কার্ফ। আর আমার মুখের সামনে এসে স্কার্ফ দোলাতে দোলাতে বলতে লাগলো – জয় শ্রী রাম, চলে যাও, বোরকা খুলে ফেলো।’

কতদিন ধরে হিজাব পরছেন এর জবাবে মুসকান বলেন, প্রি-ইউনিভার্সিটিতে যাওয়ার পর থেকে আমি হিজাব পরে আসছি। কলেজে কোনো সমস্যা হয়নি। সবকিছু আগের মতই ছিল। আমরা হিজাব পড়ে ক্লাসে যাচ্ছিলাম। আমরা বোরকা পরি না। শুধু হিজাব পরি। চুল আড়াল করে ক্লাসে যাই। তথ্যসূত্র: বিবিসি।