ঘরে স্বামী-সন্তান রেখে প্রেমিকের বাড়িতে অনশন করছেন এক গৃহবধূ


ঘরে স্বামী-সন্তানকে রেখে পরকীয়া প্রেমিকের বাড়িতে অনশন করছেন এক গৃহবধূ। তবে প্রেমিক গোলাম মোস্তফা বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে গেছেন। বুধবার রাত ৮ টার দিকে ঢাকার ধামরাই উপজেলার গাংগুটিয়া ইউনিয়নের বালিয়াপাড়া জালসা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ বিষয়ে মোস্তফার চাচাতো ভাই সোলাইমান হোসেন সোলাই বলেন, বিয়ের দাবিতে ওই গৃহবধূ মোস্তফার বাড়িতে অনশনে বসেছে। বিষয়টি নিয়ে চিন্তায় আছি। মোস্তফাতো পালিয়েই খালাস। যত সমস্যা আমাদের মাথায়।

জানা যায়, বালিয়াপাড়া জালসা গ্রামের বাক প্রতিবন্ধীর স্ত্রী দুই সন্তানের জননীর সঙ্গে বিয়ের কথা বলে গোলাম মোস্তফা পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। কথামত বিয়ে করতে কালক্ষেপণ করায় ওই গৃহবধূ ঘরে স্বামী ও দুই সন্তান রেখে মোস্তফার বাড়িতে বিয়ের দাবিতে অনশন শুরু করেন। এসময় গোলাম মোস্তফার পরিবারের লোকজন ওই গৃহবধূকে বেদম মারধর করেন। গ্রামবাসীরা বলেন, মোস্তফা খারাপ প্রকৃতির লোক। এর আগে জালসা গ্রামের এক মেয়েকে গোয়াল ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করেছিলেন। সেই মামলা এখনও কোর্টে চলমান আছে।

এ বিষয়ে বালিয়াপাড়া জালসা গ্রামের বাসিন্দা ও গাঙ্গুটিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. সোলাইমান হোসেন বলেন, রাশেদার স্বামী প্রতিবন্ধী হওয়ায় মোস্তফা তার স্ত্রীর সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তোলে। পরে আজকে রাশেদা বিয়ের দাবি নিয়ে মোস্তফার বাড়িতে গিয়ে উঠেছে। ধামরাই থানার এসআই আরাফাত হোসেন বলেন, এ বিষয়ে আমাদের কাছে কোনো অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।