নষ্ট মিটারে পৌনে ৯ লাখ টাকা বিল, পাগল প্রায় কৃষক


ময়মনসিংহের গৌরীপুরে নষ্ট মিটারে ৮ লাখ ৮৮ হাজার ৫৩৩ টাকার বিদ্যুৎ বিল আসায় পাগল প্রায় মো: সাইফুল ইসলাম নামে এক কৃষক। তিনি উপজেলার ২ নম্বর গৌরীপুর ইউনিয়নের বেকারকান্দা গ্রামের মৃত মীর হোসেনের ছেলে। পেশায় একজন কৃষক।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সাইফুল ইসলাম নিজের জমিতে পানি দেয়ার জন্য সেচ পাম্প নেন। সেচ পাম্প নিয়ে বেশ কিছুদিন কৃষি কাজ করেন। পরে ২০১৯ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি ৩৫ হাজার ২৪ টাকা বিদ্যুৎ বিল দিয়ে লাইন বিচ্ছিন্ন করার জন্য বলেন তৎকালীন আবাসিক প্রকৌশলী (সহকারী প্রকৌশলী) মো:তহুর উদ্দিনকে। পরে তিনি ওই লাইন বিচ্ছিন্ন করে।

ওই কর্মকর্তা একই বছর ময়মনসিংহ অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে কৃষকের নামে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার পরেও অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ ব্যবহার করে সেচ পাম্প দিয়ে পানি উত্তোলনের ঘটনায় মামলা দায়ের করেন।

ওই মামলার প্রেক্ষিতে কৃষক সাইফুল ইসলাম ২৩ হাজার ২০০ ইউনিটের বকেয়া বিদ্যুৎ বিলের ৩৫ হাজার ৮৭ টাকা ৪ মার্চ জমা দেন। পরে আদালতের ধার্য্যকৃত জরিমানা ১ হাজার ৮ টাকা ও বিদ্যুৎ লাইন বিচ্ছিন্ন করার জন্য ৬শ টাকা ওই বছরের ১১ মার্চ জমা দেন। এরপর থেকেই ওই মিটার অকেজো ছিল।

এ বিষয়ে কৃষক সাইফুল ইসলাম বলেন, ৮ লাখ ৮৮ হাজার ৫৩৩ টাকার বিদ্যুৎবিল আসার পর গত ২৫ জানুয়ারী লিখিতভাবে বিষয়টি জানানো হয়েছে। তবে, এখন পর্যন্ত বিষয়টি সুরাহা হয়নি।

এ বিষয়ে গৌরীপুর আবাসিক প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ) আব্দুল্লাহ আল মোমেন বলেন, অভিযোগ পাওয়ার পর তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত করে দ্রুত সময়ের মধ্যেই বিলটি সংশোধনের ব্যবস্থা নেয়া হবে।