ইরানে স্ত্রীর মাথা কেটে হাতে নিয়ে রাস্তায় হাঁটলেন স্বামী


ইরানের পশ্চিমাঞ্চলীয় খুজেস্তান প্রদেশে ১৭ বছর বয়সি এক কিশোরীর শিরশ্ছেদ করা হয়েছে। ওই কিশোরীর মাথা হাতে নিয়ে রাস্তায় নেমে আসে তার স্বামী। ইরানের রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা ইসলামিক রিপাবলিক নিউজ এজেন্সির (আইআরএনএ) বরাত দিয়ে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন এ খবর দিয়েছে।

এ ছাড়া নিউইয়র্ক পোস্টসহ বেশকিছু সংবাদমাধ্যমে স্ত্রীর কাটা মাথা হাতে নিয়ে স্বামী সাজ্জাদ হায়দারি খুজেস্তান প্রদেশের রাজধানী আহবাজ শহরের রাস্তায় হাঁটছেন এমন ভিডিও প্রকাশ করা হয়েছে।

আইআরএনএ’র খবরে গত শনিবারের এ হত্যাকে ‘পারিবারিক সম্মান রক্ষার নামে ঘটানো হত্যাকাণ্ড’ বলে উল্লেখ করা হয়।

তুতো বোন মোনার বয়স যখন ১২ বছর, তখন তাকে বিয়ে করেন সাজ্জাদ হায়দার। এরপর থেকে বিভিন্ন সময়ে স্বামীর নির্যাতনের শিকার হতে হয়েছে মোনাকে। তিন বছরের একটি ছেলে থাকায় এতদিন সংসার ছাড়েনি মোনা। কিছুদিন আগে তুরস্কে চলে যায় মোনা। বিদেশে থাকতে সমস্যা হওয়ায় সম্প্রতি দেশে ফেরে। সাজ্জাদ ও তাঁর ভাই মিলে মোনাকে বেঁধে কুপিয়ে হত্যা করে বলে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে বলা হয়েছে।

ইরানের আধাসরকারি সংবাদ সংস্থা ফার্সকে সাজ্জাদ হায়দারের মা বলেছেন, তাঁর ছেলে এর আগেও স্ত্রীকে হত্যার হুমকি দিয়েছিল। এবং এ হত্যার জন্য ছেলেকেই দায়ী করেছেন মা। এ ঘটনায় দুজনকে গ্রেপ্তারের কথা জানিয়েছে পুলিশ।