বিয়ের দুদিন পর বাপের বাড়িতেই সব শেষ!নববধূ আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে


লক্ষ্মীপুরে বিয়ের দুই দিন পর গলায় ফাঁস দিয়ে সোনিয়া আক্তার (২০) নামে এক নববধূ আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) সকালে লক্ষ্মীপুর পৌরসভার ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের বাঞ্চানগর গ্রামের হাওলাদার বাড়ি থেকে ওই নারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

সোনিয়া ওই বাড়ির আবু তাহেরের মেয়ে। তিনি লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজের স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী ছিলেন। শনিবার (১২ ফেব্রুয়ারি) পারিবারিকভাবে তার বিয়ে হয়।

সোনিয়ার স্বজনরা জানান, লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার মান্দারি ইউনিয়নের রেদোয়ান হোসেন রুবেলের সঙ্গে গেল শনিবার পারিবারিকভাবে সোনিয়ার বিয়ে হয়। তার বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা এখনও সম্পন্ন হয়নি। বিয়ের পর থেকে তিনি বাবার বাড়িতেই থাকতেন। এ ঘটনার দিন সকালে সোনিয়া স্বামীর সঙ্গে মোবাইলফোনে কথা বলেন এবং বাড়ির লোকজনের সঙ্গে তার আচার-ব্যবহার স্বাভাবিকভাবেই ছিল। কিন্তু পরিবারের অগোচরে ঘরে ঢুকে দরজা জানালা বন্ধ করে অবস্থান নেয়। দীর্ঘ সময় তার কোন সাড়া শব্দ না পেয়ে বাড়ির লোকজন ওই ঘরের জানালার ফাঁক দিয়ে তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায়। পরে দরজা ভেঙে গলায় ফাঁস দেওয়া চাদর কেটে তার মরদেহ নামিয়ে আনে। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়।

তারা আরও জানান, সোনিয়া হাসি-খুশি স্বভাবের ছিল। কেন মেয়েটি আত্মহত্যা করেছে তা জানা যায়নি।

লক্ষ্মীপুর সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. হান্নান বাংলানিউজকে বলেন, সোনিয়া আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তবে, আত্মহত্যার কারণ সম্পর্কে এখনও কিছু জানা যায়নি।