চাকরির সাক্ষাৎকারে ডেকে ধর্ষণ, নোয়াখালীর সেই যুবলীগ নেতা গ্রেফতার


নোয়াখালীর চাটখিলে স্বামী পরিত্যক্তা নারীকে চাকরির সাক্ষাৎকারে ডেকে অচেতন করে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণের ঘটনায় অভিযুক্ত যুবলীগ নেতা ফুয়াদ আল মতিনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

সোমবার (২১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে অভিযান চালিয়ে কুমিল্লা থেকে তাকে গ্রেফতার করে নোয়াখালী পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

পিবিআই নোয়াখালী কার্যালয়ের বিশেষ পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান মুন্সি সন্ধ্যায় জাগো নিউজকে এতথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘রোববার রাতে ভুক্তভোগী নারীর চাটখিল থানায় দায়ের করা ধর্ষণ মামলাটি পিবিআইকে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়। পরে প্রযুক্তির সহায়তায় অল্প সময়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়।’

গ্রেফতার ফুয়াদ আল মতিন চাটখিলের পাঁচগাঁও ইউনিয়ন যুবলীগের (একাংশের) সাধারণ সম্পাদক এবং একই ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের আবু তারাব গ্রামের অধ্যাপক আবদুল মতিনের ছেলে।

চাটখিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল খায়ের বলেন, ‘নির্যাতনের শিকার ওই নারী ধর্ষণ মামলায় যুবলীগ নেতা ফুয়াদসহ আরও একজনকে আসামি করেছেন। আজ সকালে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ওই নারীর শারীরিক পরীক্ষা শেষ হয়েছে। পরে দুপুরে তিনি আদালতে জবানবন্দি দেন।’

রোববার (২০ ফেব্রুয়ারি) সকালে উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের পাল্লা বাজারে নিজ ইন্স্যুরেন্স অফিসে চাকরির সাক্ষাৎকারের কথা বলে ওই নারীকে ডেকে নেন যুবলীগ নেতা ফুয়াদ আল মতিন। পরে পানীয়র সঙ্গে নেশাজাতীয় দ্রব্য খাইয়ে অচেতন করে তাকে কয়েকদফা ধর্ষণ করেন।

ওই সময় ফুয়াদের আরেক সহযোগী মোবাইলে ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করেন এবং তিনিও ধর্ষণের চেষ্টা চালান। বিষয়টি কাউকে জানালে ওই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল করে দেওয়াসহ নারীকে প্রাণনাশের হুমকি দেন। পরে তারা একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশা ডেকে তাকে ঘটনাস্থল ত্যাগ করতে বাধ্য করেন।