‘শখের জিপ’ ২৫০ টাকার বিদ্যুৎ খরচে চলবে ৩০০ কিলোমিটার, একটি জিপ গাড়ি তৈরি করে চমক লাগিয়ে দিয়েছেন

নরসিংদীর পলাশে মাত্র ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা খরচ করে এক মাসের মধ্যে ৫ সিটের একটি জিপ গাড়ি তৈরি করে চমক লাগিয়ে দিয়েছেন কাউছার আহম্মেদ নামে এক যুবক।

টয়োটা সাজের আদলে তৈরি গাড়ির নাম দিয়েছেন শখের জিপ। জিপ গাড়িটি বাণিজ্যিকভাবে তৈরি করতে চান কাউছার। এ জন্য সরকারের অনুমতি ও সহযোগিতা কামনা করেন।

জানা যায়, ছোটবেলা থেকেই আলাদা চিন্তা-ভাবনা ছিল কাউছারের। স্বপ্ন ছিল নিজ পায়ে দাঁড়াবেন, অনেক বড় হবেন। অর্থের অভাবে এসএসসি পাশ করার পর আর লেখাপড়া হয়ে উঠেনি। নিজ বাড়ি নরসিংদী জেলার মনোহরদী উপজেলায় হলেও মাত্র ১৭ বছর বয়সে পলাশ উপজেলায় এসে প্রাণ আরএফএল গ্রুপে চাকরি শুরু করেন। এরপর ঘোড়াশাল পৌর এলাকার বাঙ্গালপাড়া গ্রামে বিয়ে করে পলাশেই বসবাস করছেন তিনি।

ছোটবেলা থেকে নিজের পায়ে দাঁড়ানোর যেই স্বপ্ন বুকে লালন করছেন। সেই স্বপ্নই নিজে কিছু করার সাহস যুগিয়ে দিয়েছে কাউছারকে। এরপর মোবাইলের মাধ্যমে ইউটিউবে গাড়ি তৈরির বিভিন্ন ভিডিও দেখতে শুরু করেন কাউছার। কিছুদিন পর একটি অটোরিকশা কিনে সেটির বডি বিক্রি করে দেন। পরে অটোর মেশিন, চারটি চাকা, ব্যাটারি, প্রাইভেটকারের স্ট্রিয়ারিংসহ বিভিন্ন যন্ত্রপাতি দিয়ে মুডিফাই করে ৫ সিটের একটি অত্যাধুনিক জিপ গাড়ি তৈরি করতে সক্ষম হন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ঘোড়াশাল পৌর এলাকার পলাশ টু ঘোড়াশাল রোডে পরীক্ষামূলক যাত্রা শুরু করেন এবং পলাশ উপজেলা চত্বরের সামনে এসে থামেন। পরে তিনি গাড়িটি নিয়ে পলাশ হয়ে পারুলিয়া মোর পর্যন্ত আসেন এবং পথ চলতে চলতে কউছারের সঙ্গে দীর্ঘক্ষণ কথা হয়।

এ সময় কাউছার আহম্মেদ বলেন, গাড়িটি চার্জ দিয়ে চালাতে হবে। এর ব্যাটারিও বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী। ২৫০ টাকার বিদ্যুৎ খরচে প্রায় ৩০০ কিলোমিটার চলবে। এছাড়া ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৫০ কিলোমিটার গতিতে চলার উপযোগী জিপ গাড়িটি তৈরি করতে সময় লেগেছে এক মাস। আর খরচ হয়েছে মাত্র ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা।

কাউছার আরো বলেন, দেশের জন্য কিছু করতে চাই। কিন্তু টাকা-পয়সা না থাকায় পারি না। সরকারের অনুমতি ও সহযোগিতা পেলে আমার শখের জিপ গাড়িটি বাণিজ্যিকভাবে তৈরি করতে চাই। এতে মধ্যম আয়ের মানুষ অল্প টাকায় গাড়িটি কিনতে পারবেন। পাশাপাশি বেকার যুবকরা তাদের বেকারত্ব দূর করতে পারবেন।