বিশ্বের অন্যতম ‘ভয়ঙ্কর’ স্নাইপার ওয়ালি, এখন ইউক্রেনে

বিশ্বের অন্যতম ‘ভয়ঙ্কর’ স্নাইপার ওয়ালি স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে রুশ সেনাদের বিরুদ্ধে লড়াই করতে ইউক্রেন পৌঁছেছে। আজ বৃহস্পতিবার অস্ট্রেলিয়ার সংবাদমাধ্যম নিউজ ডট কম এ তথ্য জানিয়েছে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য সানার বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, সাধারণত ‘ওয়ালি’ নামে পরিচিত এই প্রশিক্ষিত স্নাইপার ২০১৫ সালে নিজে থেকেই আইএস’র বিরুদ্ধে লড়াই করতে ইরাক গিয়েছিলেন। এরপর তিনি সিরিয়ায় কুর্দিদের সঙ্গে আইএস’র বিরুদ্ধে লড়াই করেছেন।
তিনি কানাডায় স্ত্রী ও শিশু সন্তানকে রেখে আজ ইউক্রেনে প্রবেশ করেছেন বলেও প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

এর আগে ৪০ বছর বয়সী এই স্নাইপার কানাডার সশস্ত্র বাহিনীর হয়ে ২০০৯ ও ২০১১ সালে আফগানিস্তানে গিয়েছিলেন।
ওয়ালি প্রায় সাড়ে ৩ কিলোমিটার দূরে থাকা মানুষকে হত্যা করে বিশ্বের অন্যতম ‘ভয়ঙ্কর’ স্নাইপার হয়ে ওঠেছেন।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, গত শনিবার ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি ‘রুশ সেনাদের বিরুদ্ধে লড়াই ও আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা রক্ষায়’ ইচ্ছুক বিদেশিদের তার দেশে আমন্ত্রণ জানালে ওয়ালি তাতে সাড়া দেন।
ফ্রেঞ্চ-কানাডিয়ান সংবাদমাধ্যম লা প্রেসে’কে ওয়ালি বলেন, ‘তিনি আমাকে বলেছেন তাদের স্নাইপার প্রয়োজন। কোথাও আগুন লাগলে দমকল বাহিনীর সদস্যরা যেমন ছুটে যান, আমিও তেমনি ছুটেছি।’

নাম প্রকাশ না করার শর্তে তার স্ত্রী গণমাধ্যমকে বলেছেন, ‘আমি যদি তাকে না যেতে দিই তাহলে সে অনেক কষ্ট পাবে। মনে হবে তাকে যেন জেলে পুরে রেখেছি।’
কানাডার সংবাদমাধ্যম সিবিসি’কে ওয়ালি জানান, তার সঙ্গে কানাডার আরও ৩ সাবেক সেনা আছেন। তারা এক সঙ্গে পোল্যান্ড হয়ে ইউক্রেনে প্রবেশ করেছেন। সূত্র : নিউজ ডট কম