চীনে দুই বছরের মধ্যে গত ২৪ ঘন্টায় ক’রোনায় সবচেয়ে ভয়াভহ অবস্থা , আবারো লকডাউন।

করোনা ভাইরাস মহামারি থেকে এখনো বের হতে পারেনি গোটা বিশ্ব। টিকা দেওয়ার পর অনেক দেশে যখন সবকিছু স্বাভাবিক হচ্ছে, ঠিক তখনই চীনে আবার নতুন করে বৃদ্ধি পাচ্ছে করোনার সংক্রমন। চীনে করোনা শুরুর পর থেকে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক মানুষ আক্রান্ত হয়েছে বিগত ২৪ ঘণ্টায়। শনিবার (১২ মার্চ) দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছে ১ হাজার ৫২৪ জন।বিগত দুই বছরের মধ্যে এত বেশি সংক্রমণ দেখা যায়নি আর। এ খবর জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম রয়টার্স।

তবে ইতিমধ্যে সংক্রমণ রোধে ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে দেশটিতে। তবে ইতিমধ্যে সংক্রমণ ঠেকাতে সাংহাই ও অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ নগরীর কর্তৃপক্ষ লকডাউন ঘোষণা ও গণশনাক্ত পরীক্ষার উদ্যোগ নিয়েছে। এছাড়াও অনেক লোক উপস্থিত হতে পারে এমন অনুষ্ঠান ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে মুখোমুখি পাঠদান বন্ধে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। সংক্রমণের ঠেকাতে চীন অবশ্য এখন আর বিস্তৃত এলাকায় লকডাউন ঘোষণা করে না। শুধু যে এলাকা বা ভবনে সংক্রমণ শনাক্ত হয় সেই এলাকা বা ভবনটিতে কঠোর লকডাউন ঘোষণা করে।

চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন বলছে, চীনে শুক্রবার শনাক্ত করোনা রোগীদের মধ্যে ৪৭৬ জন স্থানীয়ভাবে সংক্রমিত। এদের মধ্যে ৫ জনকে প্রথমদিকে উপসর্গহীনদের তালিকায় রাখা হলেও পরে তাদের দেহে উপসর্গ দেখা দেয়। এদিন শনাক্তদের মধ্যে অভ্যন্তরীণভাবে সংক্রমিত ১০৪৮ জনের উপসর্গ নেই। আগের দিনও এই সংখ্যা ছিল ৭০৩। চীনে উপসর্গ না থাকলে সংক্রমণের শিকার ব্যক্তিদের রোগীর তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয় না।

প্রসঙ্গত, ২০২০ সালে চীনের উহান প্রদেশে প্রথমবার করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়। এরপর বিশ্বজুড়ে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে।