দীর্ঘ ১৩ বছর ধরে বিয়ের প্রলোভনে শারীরিক সম্পর্ক!

স্কুলজীবন থেকে কলেজ। দীর্ঘ ১৩ বছর ধরে বিয়ের প্রলোভনে শারীরিক সম্পর্ক। বছরে কয়েকবারই বিয়ের দিন-তারিখ ধার্য করেও বিয়ে করেননি প্রেমিক। এই অবস্থায় হঠাৎ জানতে পারেন, চার দিন পরেই প্রেমিক ধুমধামে বিয়ে করছেন।

আর এ খবরেই প্রেমিকা বিয়ের দাবিতে তিন দিন ধরে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান করছেন বিষের বোতল নিয়ে।
ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার উচাখিলা ইউনিয়নের চরআলগী গ্রামের কাজিম উদ্দিনের বাড়িতে ওই প্রেমিকা অবস্থান করছেন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ওই গ্রামের কাজিম উদ্দিনে ছেলে দেলোয়ার হোসেনের (২৮) সঙ্গে নবম শ্রেণিতে পড়া অবস্থায় পাড়ার এক মেয়ের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বর্তমানে ওই মেয়ে ময়মনসিংহের ঐতিহ্যবাহী একটি কলেজে অনার্সে পড়েন।

মেয়েটি জানান, স্থানীয় স্কুল থেকে এসএসসি পাস করে ময়মনসিংহ জেলা শহরে চলে যান। সেখানে একটি মেসে থেকে পড়ালেখা চালিয়ে যান। এর মধ্যে দেলোয়ারের একটি বেসরকারি সংস্থায় চাকরি হলে তাঁকে বিয়ে করার কথা বলে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলেন। চাকরি হওয়ার পর কেন বিয়ে করছে না প্রেমিক দেলোয়ারকে এ প্রশ্ন করলে তিনি বেশ কয়েকটি তারিখ দিয়েও বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে কালক্ষেপণ করতে থাকেন। এর মধ্যে জানতে পারেন, দেলোয়ারকে অন্যত্র বিয়ে করানোর জন্য পরিবারের লোকজন পাত্রী দেখা শুরু করেছে।

গত বুধবার তিনি নিশ্চিত হন, ময়মনসিংহ শহরের সুতিয়াখালি এলাকায় প্রেমিকের বিয়ের তারিখ ধার্য হয়েছে ২৬ মে। পরে ঘটনাটি শতভাগ নিশ্চিত হতে তিনি দেলোয়ারকে ফোন করলে ফোন রিসিভ না করায় গত শুক্রবার বিয়ের দাবি নিয়ে প্রেমিক দেলোয়ারের বাড়িতে গিয়ে অবস্থান নেন। আজ রবিবার রাত ৯টা পর্যন্ত তিনি ওই বাড়িতে থাকলেও দেলোয়ার গাঢাকা দিয়েছেন।

এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে ফোন দিলে দোলোয়ারের মোবাইল নম্বর বন্ধ পাওয়া যায়। তবে দেলোয়ারের চাচা কলিম উদ্দিন জানান, বিষয়টি নিয়ে পুরো পরিবার খুবই বিব্রত। চেষ্টা করছেন সামাজিকভাবে মীমাংসা করার।

ঈশ্বরগঞ্জ থানার ওসি মোস্তাছিনুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।