নুপুর শর্মার পাশে সাবেক ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর

মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) কে নিয়ে নূপুর শর্মার বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে রীতিমতো রণক্ষেত্র পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে ভারতে। ক্ষমতাসীন দল বিজেপির এই জ্যেষ্ঠ নেতার বিতর্কিত মন্তব্যের কারণে ভারত এক কূটনৈতিক ঝড়ের মধ্যে পড়েছে। ইতিমধ্যে নুপূর শর্মাকেও দল থেকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিজেপি। তবে এবার এই বহিষ্কৃত নেতা নুপুর শর্মার পাশে দাঁড়ালেন ক্রিকেটার থেকে রাজনীতিবিদ বনে যাওয়া গৌতম গম্ভীর।

LetsTolerateIntolerance’’ হ্যাশট্যাগে গম্ভীর টুইট করেছেন: ‘ক্ষমাপ্রার্থী একজন নারীর বিরুদ্ধে সারা দেশে ঘৃণা ও মৃত্যুর হুমকির অসুস্থ প্রদর্শনীতে তথাকথিত ধর্মনিরপেক্ষ উদারপন্থীদের নীরবতা। নিশ্চয়ই বধিরতা!’

এর আগে ২০১৯ সালে গৌতম গম্ভীর কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অরুণ জেটলি এবং রবিশঙ্কর প্রসাদের উপস্থিতিতে ভারতীয় জনতা পার্টিতে (বিজেপি) যোগদান করেছিলেন। তিনি পূর্ব দিল্লি থেকে নির্বাচিত লোকসভার সদস্য।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি জ্ঞানবাপী মসজিদ নিয়ে ভারতের একটি টেলিভিশন চ্যানেলের অনুষ্ঠানে নূপুর শর্মা মহানবীকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করেন বলে অভিযোগ উঠে। বিতর্কিত মন্তব্য করেন বিজেপি নেতা নবীন কুমার জিন্দালও। এরপরই শুরু হয় সমালোচনা আর বিক্ষোভ। চলছে সংঘর্ষও। বিভিন্ন রাজ্যে এরই মধ্যে নূপুরের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। দেশের গণ্ডি পেরিয়ে ক্ষোভ পৌঁছেছে বিভিন্ন মুসলিম দেশে। কড়া প্রতিক্রিয়া দিয়েছে বিভিন্ন দেশ। এ ইস্যুতে পরিস্থিতি জটিল আকার ধারণ করায় বিজেপির পক্ষ থেকে নূপুর ও নবীনকে ছয় বছরের জন্য বরখাস্ত করা হয়েছে।

এছাড়া মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) কে নিয়ে কটুক্তি করার জেরে মুসলিম বিশ্বের ক্রমবর্ধমান ক্ষোভ ও তোপের মুখে পড়েছে ভারত। মধ্যপ্রাচ্যের প্রভাবশালী দেশগুলোসহ এখন পর্যন্ত বিশ্বের অন্তত ১৫টি দেশ ভারতের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে।দেশগুলো তাদের নিন্দা ও নবী মুহাম্মদের সম্পর্কে বিতর্কিত মন্তব্যের কারণে ভারত সরকারকে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানিয়েছে।