কুরিয়ে পাওয়া ১ লাখ টাকা ফিরিয়ে দিয়ে, দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন দরিদ্র ভ্যানচালক

ভিন্ন খবর

ভ্যান চালানোর সময় সড়কে কাগজে মোড়ানো এক লাখ টাকার বান্ডিল পান ভ্যানচালক দুখাই বেপারী। দুখাই দারিদ্রতায় ভুগলেও নিজের সততার কাছে লাখ টাকার লোভের পরাজয় হয়। কুড়িয়ে পাওয়া এক লাখ টাকা প্রকৃত মালিকের হাতে তুলেন দিয়েছেন দুখাই। রবিবার (১ মার্চ) সকালে কুড়িয়ে পাওয়া টাকা মালিকের কাছে হস্তান্তর করেন ভ্যানচালক। দুখাই ভাঙ্গার কাউলীবেড়া ইউপির বালিয়াডাঙ্গী গ্রামের মোমরেজ বেপারীর ছেলে।

দুখাই জানান, গত মঙ্গলবার দুপুরে ভাঙ্গার চান্দ্রা ইউপির মালিগ্রাম বাজারের সড়কের ওপর কাগজে মোড়ানো এক লাখ টাকার বান্ডিল দেখেন তিনি। কাগজে ঠিকানা লেখা ছিল,

‘সদরপুর উপজেলার হাট কৃষ্ণপুর গ্রামের ব্যবসায়ী মন্টু বিশ্বাস’। সেই ঠিকানা অনুযায়ী মন্টু বিশ্বাসের সঙ্গে যোগাযোগ করেন দুখাই। এরপর মন্টুর সহযোগী ব্যবসায়ী আজিমনগর ইউনিয়নের পুকুরপাড় গ্রামের শীতল দাসের ছেলে অতুল দাসের এক লাখ টাকা হারানোর বিষয়টি জানতে পারেন। পরে স্থানীয়দের উপস্থিতিতে কাগজে লেখা বর্ণনার সঙ্গে অতুলের

কথার মিল পান। এরপর মালিকের হাতে এক লাখ টাকা হস্তান্তর করেন দুখাই বেপারী। মন্টু বিশ্বাস জানান, দু্খাই তার কাছে আসার পর ব্যবসায়ী সহযোগী অতুলের টাকা হারানো ঘটনা বলেন। পরে খবর পেয়ে অতুল টাকা হারানোর বর্ণনা দিলে সবকিছু মিলে যায়। পরে ওই টাকা অতুলের কাছে হস্তান্তর করেন ভ্যানচালক দুখাই। দরিদ্র মানুষ লোভ না করে টাকা ফেরত দিয়েছে, যা সততার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত।