ব্রিজের নিচে বস্তাবন্দি অবস্থায় মাদরাসাছাত্রী , তবে জীবিত

ঠাকুরগাঁওয়ে শহরের টাঙ্গন ব্রিজের নিচ থেকে বস্তার ভিতর থেকে মাহফুজা খাতুন (২০) নামে এক মেয়েকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতলে ভর্তি করেছেন স্থানীয়রা। বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) সকালে মেয়েটিকে উদ্ধার করা হয়।

মাহফুজা খাতুন দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার বিজয়পুর গ্রামের মৃত মোস্তফা কামালের মেয়ে। সে ঠাকুরগাঁও পৌরশহরের খাতুনে জান্নাত কামরুন্নেছা কওমী মহিলা মাদরাসায় কিতাব বিভাগের ছাত্রী।

স্থানীয় লোকজন জানান, সকালে টাঙ্গন ব্রিজের নিচে বস্তাবন্দি মেয়েটিকে দেখতে পান এলাকাবাসী। পরে তাকে উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। বর্তমানে সে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

মেয়েটির মা সালমা খাতুন বলেন, গুলজার নামের এক ছেলে আমার মেয়েকে পালিয়ে বিয়ে করেছিলো। কিন্তু পরে সেই ছেলে আমার মেয়েকে ছেড়ে চলে যায়। সেই ছেলেই আমার মেয়ের ক্ষতি করার জন্যে এমনি করতে পারে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ঠাকুরগাঁও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল হোসেন বলেন, বস্তার ভেতর থেকে উদ্ধারকৃত মেয়েটি বলছেন যে, তার সাবেক স্বামীসহ আরো কয়েকজন তাকে প্রলোভন দেখিয়ে রাতে মাদ্রাসা থেকে বের করে টাঙ্গন ব্রিজের নিচে বস্তায় ভরে রেখে চলে যায়। কিন্তু তাকে কোনো প্রকার নির্যাতন করেনি বলে মেয়েটি জানিয়েছেন। ওই মেয়েটির এমন কথা রহস্যজনক। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান ওসি।